মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

সিটিজেন চার্টার

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস
বরগুনা
িি.িফরঢ়.মড়া.নফ
-ঃসিটিজেন চার্টারঃ-
মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট এর জন্য করণীয় বিষয়সমূহঃ
১। মেশিন রিডেবল পাসপোর্টের (গজচ) আবেদন ফরম নিকটস্থ বিভাগীয়/আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস অথবা অনলাইন হতে (িি.িফরঢ়.মড়া.নফ) সংগ্রহ করতে হবে এবং ১নং কলামে শুধু বাংলায় নাম লিখতে হবে, বাকী সব কলামসমূহ ইংরেজীতে বড় অক্ষরে লিখতে হবে।
২। আবেদনপত্র পূরণের পর  (৫৫ী৪৫ মিঃমিঃ) ছবি আঠা বা গাম দিয়ে নির্দিষ্ট স্থানে লাগিয়ে তার  উপর এমনভাবে সত্যায়ন করতে হবে যাতে কিছু অংশ ছবির উপর  কিছু অংশ ফরমের উপর পড়ে। এবং আবেদপত্রের শেষ পূষ্ঠায় সত্যায়ন করতে হবে ও সত্যায়নকারীর তথ্য প্রদান করতে হবে।
৩। আবেদনপত্রের সাথে জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা জন্ম নিবন্ধন সনদের সত্যায়িত ফটোকপি সংযুক্ত করতে হবে। প্রযোজ্য ক্ষেত্রে প্রাসঙ্গিক টেকনিক্যাল সনদসমূহের (যেমন-ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, ড্রাইভার ইত্যাদি) সত্যায়িত ফটোকপি সংযুক্ত করতে হবে।
৪। অপ্রাপ্ত বয়স্ক (১৫ বছরের কম) আবেদনকারীর ক্ষেত্রে আবেদনকারীর পিতা-মাতার একটি করে রঙ্গিন ছবি (৩০ী২৫ মিঃমিঃ) আঠা দিয়ে লাগানোর পর সত্যায়ন করতে হবে।
৫। (ক) সরকারি, স্বায়ত্তশাষিত ও রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার স্থায়ী কর্মকর্তা/কর্মচারী, (খ) অবসরপ্রাপ্ত সরকারি চাকুরীজীবী ও তাদের নির্ভরশীল স্ত্রী/স্বামী, (গ) সরকারি চাকুরীজীবীর ১৫ (পনের) বছরের কম বয়সের সন্তান, (ঘ) ৫ (পাঁচ) /১০ (দশ) বছরের অতিক্রান্ত পাসপোর্ট সমূহ সমর্পণকৃত (স্যারেন্ডারড) এর জন্য একটি ফরম এবং যারা প্রথম বার পাসপোর্টের জন্য আবেদন করবেন তাদের জন্য ০২ (দুই) কপি পূরণকৃত পাসপোর্ট ফরম দাখিল করতে হবে।
৬। নির্ধারিত নিমোক্ত ব্যাংকের অনুমোদিত শাখায় ফিস জমা দিতে পারবেন।
(ক) সোনালী ব্যাংক লিঃ (খ) ব্যাংক এশিয়া লিঃ (গ) ঢাকা ব্যাংক লিঃ (ঘ)ওয়ান ব্যাংক লিঃ (ঙ) ট্রাষ্ট ব্যাংক লিঃ (চ) প্রিমিয়ার ব্যাংক লিঃ
৭। পাসপোর্ট ফিস ও প্রাপ্তির সময়ঃ
বিতরণের প্রকৃতি       ফিস          ভ্যাট (১৫%)                     পাসপোর্ট প্রদানের সময়সীমা
        সাধারণ       ৩,০০০/-              ৪৫০/-    সম্ভাব্য ২১ দিন, পুলিশ প্রতিবেদন প্রাপ্তি সাপেক্ষে
         জরুরি        ৬,০০০/-              ৯০০/-    সম্ভাব্য ১১ দিন, পুলিশ প্রতিবেদন প্রাপ্তি সাপেক্ষে
৮। যে সকল ব্যক্তিগণ পাসপোর্টের আবেদনপত্র ও ছবি প্রত্যায়ন ও সত্যায়ন করতে পারবেন-সংসদ সদস্য, সিটি কর্পোরেশনের মেয়র, ডেপুটি মেয়র ও কাউন্সিলরগণ, গেজেটেড কর্মকর্তা, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়য়ের শিক্ষক, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়র ও পৌর কাউন্সিলরগণ,বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক, বেসরকারি কলেজের অধ্যক্ষ, বেসরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, জাতীয় দৈনিক পত্রিকার সম্পাদক, নোটারী পাবলিক এবং আধা সরকারি/স্বায়ত্তশাসিত রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার জাতীয় বেতন স্কেলের ৭ম ও তদূর্ধ্ব গ্রেডের কর্মকর্তাগণ।
৯। শিক্ষাগত বা চাকুরীসূত্রে প্রাপ্ত পদবীসমূহ (যেমন-ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, ডাক্তার, পিএইচডি ইত্যাদি) নামের অংশ হিসেবে পরিগনিত হবে না। আবেদনকারীর পিতা, মাতা, স্বামী/স্ত্রী মৃত হলেও তার/তাদের নামের পূর্বে মৃত/মরহুম/খধঃব লেখা যাবে না।
১০।  সরকারী  চাকুরীজীবীদের জিও (এঙ)/এনওসি (ঘঙঈ) দাখিল করতে হবে। এঙ/ঘঙঈ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের ডবনংরঃব-এ প্রদর্শিত থাকতে হবে। জাতীয় বেতন স্কেলের নি¤œতম নবম (৯ম) গ্রেড হতে উর্ধ্বতন স্তরের সরকারী চাকুরীজীবীদের সরকারী সফরে (এঙ) এর ভিত্তিতে অফিসিয়াল পাসপোর্ট পাবে। এবং ব্যক্তিগত সফরে ( চিকিৎসা, পবিত্র হজ্জ্ব পালন, তীর্থস্থান) ভ্রমণের ক্ষেত্রে সরকারী ফিস গ্রহণ সাপেক্ষে জিও (এঙ) এর মাধ্যমে অফিসিয়াল পাসপোর্ট পাবে। অফিসিয়াল পাসপোর্ট না থাকলে (ঘঙঈ) এর মাধ্যমে সরকারী ফিস গ্রহণ সাপেক্ষে সাধারণ পাসপোর্ট পাবে।
১১। আপনার বর্তমান পাসপোর্ট (ক) হারিয়ে গেলে, (খ) মেয়াদ উত্তীর্ণ হলে, (গ) মেয়াদ আছে কিন্তু পাতা শেষ হয়েছে অথবা (ঘ) ব্যবহারের অনুপযোগী হলে- এসব ক্ষেত্রে ডি.আই.পি ফরম-২ ( জব-ওংংঁব ফরম) সহ ডি.আই.পি ফরম-১ পূরণ করে নির্ধারিত ব্যাংকসমূহে পাসপোর্ট  ফিস জমাদানপূর্বক মেশিন রিডাবল পাসপোর্ট (গজচ) এর জন্য আবেদন করতে হবে।
১২। পাসপোর্ট প্রস্তুত হলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপনার মোবাইলে একটি ম্যাসেজ এবং ঊ-সধরষ অফফৎবংং   দেওয়া থাকলে সধরষ যাবে। এছাড়া পাসপোর্ট আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা জানার জন্য যে কোন মোবাইল থেকে ম্যাসেজ পাঠিয়ে জানা যাবে। ম্যাসেজ পাঠানোর নিয়মঃ মোবাইলের ম্যাসেজ অপশনে গিয়ে লিখে একটি স্পেস দিয়ে আপনার ডেলিভারী স্লিপের ১৫ ডিজিটের সংখ্যাটি (০৪০১০০০০০ীীীীী) লিখে ৬৯৬৯ নম্বরে পাঠিয়ে দিলে সাথে সাথে আপনার মোবাইলে একটি ফেরৎ ম্যাসেজ আসবে যেখানে আপনার পাসপোর্ট ইস্যু প্রক্রিয়ার সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে জানা যাবে।(যেমনঃ গজচ (ঝঢ়ধপব) ০৪০১০০০০০ীীীীী ংবহফ ৬৯৬৯)
১৩। ডাটা এন্ট্রি করার পরে প্রদত্ত স্লিপে নাম, পিতা-মাতা-স্বামী/স্ত্রীর নাম, ঠিকানা, বয়স ইত্যাদি কোন ভূল পরিলক্ষিত হলে ছবি তোলার পূর্বেই কর্তৃপক্ষকে জানাতে হবে।
১৪। আবেদনকারী চাইলে িি.িঢ়ধংংঢ়ড়ৎঃ.মড়া.নফ এই ঠিকানায় ঙহষরহব-এ আবেদন করতে পারবে। এক্ষেত্রে ঙহষরহব ডাটাএন্ট্রি করা যাবে। পরবর্তীতে অফিসে এসে ছবি তোলা, আঙ্গুলের ছাপ ও ডিজিটাল স্বাক্ষর দিতে হবে।
১৫। আঞ্চলিক পাসপোট অফিস, বরগুনার ই-মেইল ঠিকানাঃ ৎঢ়ড়নড়ৎমঁহধ@ঢ়ধংংঢ়ড়ৎঃ.মড়া.নফ এবং ফেসবুক ঠিকানাঃ ঢ়ধংংঢ়ড়ৎঃড়ভভরপব নড়ৎমঁহধ.
১৬। অফিসের কার্যক্রম ও পাসপোর্ট সেবা সংক্রান্ত কোন অভিযোগ থাকলে অত্র অফিসের উপ সহকারী পরিচালক (কক্ষ নং-১০৯) অবহিত করুন।
                    
                    “পাসপোর্ট নাগরিক অধিকার,
                      নিঃস্বার্থ সেবাই অঙ্গীকার।”

 

 

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter